ঘোষনা:
শিরোনাম :
ইরান রাশিয়াকে ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র দিয়েছে ইমরানের স্বতন্ত্র প্রার্থীরা যাচ্ছেন সুন্নি ইত্তেহাদ কাউন্সিলে সমুদ্র সম্পদ অনুসন্ধান-আহরণ প্রয়োজন: প্রধানমন্ত্রী নীলফামারীতে নদী এখন ফসলি জমি নীলফামারীতে গ্রামীণ ব্যাংকের উদ্যোগে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত। নীলফামারী প্রেসক্লাবে সিয়াম সভাপতি, নুর আলম সাধারণ সম্পাদক ব্যাংক খাতে কমছে না খেলাপি ঋণ, এক বছরে বাড়ল ২৫ হাজার কোটি টাকা জলঢাকায় বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ কমিটির ত্রৈমাসিক সভা অনুষ্ঠিত ওরা আমার স্বামীকে হত্যা করেছে, আমি তাদের ফাঁসি চাই নীলফামারীতে পিতার সম্পত্তি চাইতেই নির্যাতনের শিকার শিক্ষার্থী অন্তি ; প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন
সুনামগঞ্জের ছাতকের শিশু জুবেল আহমদ হত্যা মামলায় একজনকে মৃত্যুদণ্ড  ও জরিমানা করেছে আদালত

সুনামগঞ্জের ছাতকের শিশু জুবেল আহমদ হত্যা মামলায় একজনকে মৃত্যুদণ্ড  ও জরিমানা করেছে আদালত

সিলেট প্রতিনিধি ॥

সুনামগঞ্জের ছাতকের শিশু জুবেল আহমদ হত্যা মামলায় একজনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে দণ্ডপ্রাপ্ত সেলিম মিয়াকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। পাশাপাশি হত্যার পর লাশ গুমের ঘটনায় ২০১ ধারায় দণ্ডপ্রাপ্তের ৩ বছরের কারাদণ্ড এবং পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।আজ মঙ্গলবার দুপুরে সিলেট বিভাগীয় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. রেজাউল করিম এ রায় ঘোষণা করেন।দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি সেলিম মিয়ার বাড়ি সুনামগঞ্জের ছাতকের পীরপুর গ্রামে। সেলিম গত ৭ মার্চ থেকে পলাতক আছেন। রায় ঘোষণাকালে আদালতে উপস্থিত ছিলেন মামলায় অভিযুক্ত আবুল কালাম ও এখলাছুর রহমান। তবে তাদের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাদের বেকসুর খালাস দিয়েছেন আদালত।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, ২০১১ সালের ২৮ নভেম্বর ছাতকের পীরপুর গ্রামের একটি পুকুর থেকে যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধার ছেলে শিশু জুবেলের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় জুবেলের ভাই রুহেল আহমদ বাদী হয়ে সেলিমসহ তিনজনের নাম উল্লেখ করে ছাতক থানায় মামলা করেন। মামলায় উল্লেখ করা হয়, মুঠোফোন কেনা-বেচা নিয়ে সেলিমের পরিবারের সঙ্গে তাদের বিরোধ ছিল। এর জের ধরেই শিশু জুবেলকে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর লাশ গুম করতে পুকুরে ফেলা হয়।সিলেট বিভাগীয় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিশেষ সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) কিশোর কুমার কর বলেন, ২০১৩ সালের প্রথম দিকে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সুনামগঞ্জ আদালতে তিনজনকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দেন। পরে সুনামগঞ্জ আদালত থেকে মামলাটি সিলেট বিভাগীয় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে পাঠানো হয়। ২০১৫ সালের ২৮ মে আদালত অভিযোগ গঠন করে বিচারকাজ শুরু করেন। মামলায় ২২ জন সাক্ষীর মধ্যে ১৭ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে আজ বিচারক রায় ঘোষণা করেন।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST