ঘোষনা:
শিরোনাম :
সাতক্ষীরা প্রাইভেটকার নদীতে পড়ে নিহত-২, আহত-৩ । চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে ছাত্র রাজনীতি বন্ধ ঘোষণা । নীলফামারীতে বঙ্গবন্ধু কাবাডি প্রতিযোগিতা উপলক্ষে আনন্দ শোভাযাত্রা নিখোঁজের তিনদিন পর গৃহবধূর মৃতদেহ মিলল ভুট্টার ক্ষেতে। জলঢাকা হাসপাতাল সড়কটি উন্নয়ন কাজ তদারকি করছেন। পৌরসভার চট্টগ্রামে গৃহবধূ পারভিন আকতার হত্যা মামলায় ৪ আসামীর মৃত্যুদন্ডের আদেশ। স্টামফোর্ড সাংবাদিক ফোরামের সাধারণ সদস্যের তালিকা অনুমোদন ডিমলায় ২টি লাশ উদ্ধার । সৈয়দপুরে বন্ধ রয়েছে ট্রেনের স্ট্যান্ডিং টিকেট ,পকেটে ভারী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের । ডোমারে ১০৪ কোটি টাকা ব্যয়ে সড়ক সংস্কার কাজের উদ্বোধন।
৭৮ উপজেলায় নির্বাচন, ২৮ কেন্দ্রে স্থগিত,অধিকাংশ চেয়ারম্যান পদে নৌকার জয় জয় কার।

৭৮ উপজেলায় নির্বাচন, ২৮ কেন্দ্রে স্থগিত,অধিকাংশ চেয়ারম্যান পদে নৌকার জয় জয় কার।

স্টাফ রিপোর্টার ॥ প্রথম দফায় নির্বাচনে ৭৮টির মধ্যে অধিকাংশ উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে জয় পেয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা। এছাড়া দলটির বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে ১৬ স্বতন্ত্র প্রার্থীও জয়লাভ করেছেন। এর বাইরে বিএনপির স্বতন্ত্র প্রার্থীরা দুটি উপজেলায় জয়লাভ করেছেন। এর আগে ১৫ জন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। এছাড়া ৬ উপজেলায় শেষ মুহূর্তে এসে নির্বাচন স্থগিত রাখা হয়েছে। নির্বাচনে বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হলেন যারা তাদের মধ্যে রয়েছেন।

নীলফামারী ॥ উপজেলা নির্বাচনে রবিবার ভোট গ্রহণ ও গণনা শেষে ছয় উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের নৌকা পেয়েছে ৩টি ও আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী পেয়েছে একটি। ডোমার উপজেলায় তোফায়েল আহমেদ নৌকা প্রতীকে ৩০ হাজার ৫৭৩ পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। নিকটতম বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুল রাজ্জাক বসুনিয়া পেয়েছেন ২০ হাজার ৮৮৩। ডিমলায় আওয়ামী লীগের মুক্তিযোদ্ধা তবিবুল ইসলাম ২৫ হাজার ৯৭৬ পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। নিকটতম মোশারফ হোসেন মিন্টু লাঙ্গল প্রতীকে পান ১৩ হাজার ৪ ভোট। সৈয়দপুরে আওয়ামী লীগের মোখছেদুল মোমিন ৪০ হাজার ৬৫০ পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। নিকটতম জয়নাল আবেদীন লাঙ্গল প্রতীকে পেয়েছেন ২০ হাজার ৭৮৯ ভোট। কিশোরীগঞ্জ আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী শাহ মোঃ আব্দুল কালাম বারী আনারস প্রতীকে ৩৬ হাজার ৪৭ পেয়ে এগিয়ে আছেন। নিকটতম স্বতন্ত্র প্রার্থী রশিদুল ইসলাম ঘোড়া প্রতীকে ২২ হাজার ৮২৬ ভোট পেয়েছেন।

লালমনিরহাট ॥ কালীগঞ্জে আওয়ামী লীগের মাহবুবুজ্জামান আহম্মেদ ৮৮ হাজার ৮শ’ ৭৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। প্রতিদ্বন্দ্বী জাতীয় পার্টির শাহ সুলতান নাসিরুদ্দিন আহম্মেদ পেয়েছেন ৪ হাজার ৯শ’ ১৮ ভোট। সদর উপজেলায় কামরুজ্জামান সুজন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) আনারস প্রতীক নিয়ে ২৯ হাজার ৩৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। আওয়ামী লীগের নজরুল হক পাটোয়ারী ভোলা নৌকা প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ২১ হাজার ৫শ’ ৭১ ভোট। পাটগ্রামে আওয়ামী লীগের রুহুল আমিন বাবুল ৪৯ হাজার ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। নিকটতম বিদ্রোহী ওয়াজেদুল ইসলাম শাহীন পেয়েছেন ২৪ হাজার ভোট। হাতীবান্ধায় মশিউর রহমান মামুন (বিদ্রোহী) ২৯ হাজার ২২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। আওয়ামী লীগের লিয়াকত হোসেন বাচ্চু নৌকা প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ২৫ হাজার ৬০ ভোট।

কুড়িগ্রাম সদরে আওয়ামী লীগের আমান উদ্দিন আহমেদ মঞ্জু বিজয়ী হয়েছেন। ভুরুঙ্গামারীতে আওয়ামী লীগের নুরন্নবী চৌধুরী খোকন বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। নাগেশ^রীতে আওয়ামী লীগের মোস্তফা জামান বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। রাজারহাট উপজেলায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) প্রার্থী জাহিদ সোহরাওয়ার্দ্দী বাপ্পী বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। উলিপুরে আওয়ামী লীগের গোলাম হোসেন মন্টু বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। চিলমারীতে আওয়ামী লীগের শওকত আলী সরকার বীরবিক্রম বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। রাজিবপুর উপজেলায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) প্রার্থী আকবর হোসেন হিরু বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। রৌমারী উপজেলায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) প্রার্থী শেখ আব্দুল্লাহ ১ হাজার ৪শ’ ভোটে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মজিবর রহমান বঙ্গবাসীর প্রাপ্ত ভোট থেকে এগিয়ে আছেন।

পঞ্চগড় ॥ সদরে আমিরুল ইসলাম (আওয়ামী লীগ), তেঁতুলিয়া উপজেলায় কাজী মাহামুদুর রহমান ডাবলু (আওয়ামী লীগ), আটোয়ারী উপজেলায় তোহিদুল ইসলাম (আওয়ামী লীগ), দেবীগঞ্জ উপজেলায় আব্দুল মালেক চিশতী (স্বতন্ত্র)। বোদা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন ফারুক আলম টবি (আওয়ামী লীগ)।

সুনামগঞ্জ ॥ সদরে নৌকা প্রতীকে আওয়ামী লীগ প্রার্থী ৪০ হাজার ৫শ’ ৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন খায়রুল হুদা চপল। নিকটতম বিদ্রোহী প্রার্থী মনিষ কান্তি দে মিন্টু ঘোড়া প্রতীকে পেয়েছেন ২৫ হাজার ৪শ’ ১৭ ভোট। বিশ্বম্ভরপুরে আনারস প্রতীক নিয়ে ২৩ হাজার ২শ’ ৫২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন বিদ্রোহী সফর উদ্দিন। তার নিকটতম আওয়ামী লীগের রফিকুল ইসলাম পেয়েছেন ১৭ হাজার ৬শ’ ১ ভোট। দক্ষিণ সুনামগঞ্জে আনরস প্রতীক নিয়ে ৩৫ হাজার ১শ’ ৪২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী ফারুক আহমদ। তার নিকটতম প্রার্থী নৌকা প্রতীকে আবুল কালাম পেয়েছেন ২২ হাজার ২শ’ ৭ ভোট। তাহিরপুরে নৌকা প্রতীক ৫০ হাজার ৪শ’ ৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী করুনা সিন্ধু বাবুল। নিকটতম স্বতন্ত্র প্রার্থী আনিসুল হক মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ২৪ হাজার ৩শ’ ৩০ ভোট। ছাতকে নৌকা প্রতীক ৬৬ হাজার ১শ’ ৩০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন ফজলুর রহমান। নিকটতম স্বতন্ত্র অলিউর রহমান চৌধুরী বকুল পেয়েছেন ২৭ হাজার ২শ’ ৮০ ভোট। দোয়ারাবাজারে নৌকা প্রতীকে ৩১ হাজার ৪৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন ডাঃ মোঃ আব্দুর রহিম। নিকটতম বিদ্রোহী দেওয়ান তানভীর আশরাফী চৌধুরী বাবু পেয়েছেন ১৯ হাজার ২শ’ ৯১ ভোট। দিরাইয়ে মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে ২০ হাজার ৯শ’ ২২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন বিদ্রোহী প্রার্থী মঞ্জুরুল আলম চৌধুরী। তার নিকটতম আওয়ামী লীগ প্রার্থী প্রদীপ রায় পেয়েছেন ২০ হাজার ৮শ’ ৬০ ভোট। শাল্লায় নৌকা প্রতীকে ২৪ হাজার ৯শ’ ৮০ ভোট পেয়ে বিজয়ী আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ। নিকটতম আনারস প্রতীকে বিদ্রোহী এ্যাডভোকেট অবনী মোহন দাস পেয়েছেন ১৯ হাজার ৩শ’ ৩ ভোট। ধর্মপাশায় ঘোড়া প্রতীকে ৩৭ হাজার ৪শ’ ৭৫ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন বিদ্রোহী প্রার্থী মোজাম্মেল হোসেন রোকন। নিকটতম আওয়ামী লীগ প্রার্থী শামীম আহমদ মুরাদ পেয়েছেন ২৯ হাজার ৩শ’ ৭২ ভোট।

নেত্রকোনা ॥ কলমাকান্দায় আওয়ামী লীগের আব্দুল খালেক তালুকদার, মোহনগঞ্জে আওয়ামী লীগের শহীদ ইকবাল, খালিয়াজুরিতে আওয়ামী লীগের গোলাম কিবরিয়া জব্বার, মদনে আওয়ামী লীগের হাবিবুর রহমান, বারহাট্টায় বিদ্রোহী প্রার্থী মঈনউল হক কাশেম এবং দুর্গাপুরে বিদ্রোহী প্রার্থী জান্নাতুল ফেরদৌস ঝুমা তালুকদার নির্বাচিত হয়েছেন। সদরে আওয়ামী লীগের অধ্যাপক তফসির উদ্দিন খান, কেন্দুয়ায় আওয়ামী লীগের মোঃ নূরুল ইসলাম বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

সিরাজগঞ্জের চৌহালীতে আওয়ামী লীগের ফারুক সরকার, শাহজাদপুরে আওয়ামী লীগের আজাদ রহমান, রায়গঞ্জে আওয়ামী লীগের ইমরুল তালুকদার নির্বাচিত হয়েছেন। নাটোরের লালপুরে আওয়ামী লীগের ইসহাক আলী ৬০ হাজার ৫৩৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। নিকটতম জাসদের আব্দুল হালিম পেয়েছেন ২ হাজার ১০৬ ভোট।

হবিগঞ্জ ॥ সদরে মোতাচ্ছিরুল ইসলাম ৩৫ হাজার ২৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান সৈয়দ আহমদুল হক পেয়েছেন ২৮ হাজার ৪০ ভোট। লাখাইয়ে এ্যাডভোকেট মুশফিউল আলম আজাদ নৌকা প্রতীকে ৩০ হাজার ৬২৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম (বিদ্রোহী) মাহফুজুল আলম মাহফুজ ২৪ হাজার ৩৯৮ ভোট। বাহুবলে খলিলুর রহমান (স্বতন্ত্র) ২৩ হাজার ৪৮৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নৌকা প্রতীকে আব্দুল হাই পেয়েছেন ১৭ হাজার ৬০৬ ভোট।

বানিয়াচঙ্গে আবুল কাশেম চৌধুরী নৌকা প্রতীকে ৫৯ হাজার ৮৮৫ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম ইকবাল খান ৪৩ হাজার ৪৭২ ভোট পেয়েছেন। নবীগঞ্জে ফজলুল হক চৌধুরী (স্বতন্ত্র) ৪৭ হাজার ২৩৮ ভোট পেয়ে (ঘোড়া) বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম নৌকা প্রতীকে আলমগীর চৌধুরী পেয়েছেন ২৬ হাজার ২১৩ ভোট। মাধবপুরে বিএনপি নেতা (স্বতন্ত্র) সৈয়দ মোঃ শাহজাহান ৫৬ হাজার ৭৫৫ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম এহতেশামুল বর চৌধুরী (বিদ্রোহী আওয়ামী লীগ) পেয়েছেন ২৬ হাজার ৮৬৯ ভোট। চুনারুঘাটে আব্দুল কাদির লস্কর নৌকা প্রতীকে ৩৭ হাজার ৩৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম আবু তাহের (বিদ্রোহী আওয়ামী লীগ) পেয়েছেন ৩৫ হাজার ২১২ ভোট। আজমিরীগঞ্জে মর্তুজা হাসান নৌকা ২২ হাজার ৮৯৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম আলাউদ্দি মিয়া (আনারস) পেয়েছেন ২০ হাজার ৫৬২ ভোট।

জামালপুর ॥ বকশীগঞ্জ, দেওয়ানগঞ্জ ও ইসলামপুর উপজেলার মধ্যে দুটিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী এবং একটিতে আওয়ামী লীগ প্রার্থী ভোটে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। বাকি চারটি সরিষাবাড়ী, মেলান্দহ, মাদারগঞ্জ ও জামালপুর সদর উপজেলায় আওয়ামী লীগ চেয়ারম্যান প্রার্থীরা বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। বকশীগঞ্জে স্বতন্ত্র প্রার্থী ৪১ হাজার ৯৩৫ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। নিকটতম আওয়ামী লীগের এ কে এম সাইফুল ইসলাম বিজয় পেয়েছেন ১৭ হাজার ২৬৩ ভোট। দেওয়ানগঞ্জ স্বতন্ত্র প্রার্থী মোঃ সোলায়মান হোসেন ৩৬ হাজার ৬৭ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। নিকটতম মোঃ আবুল কালাম আজাদ নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন ৩০ হাজার ৬৫৪ ভোট। ইসলামপুরে আওয়ামী লীগের এসএম জামাল আব্দুন নাসের ৪৩ হাজার ১৪৩ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। নিকটতম বিদ্রোহী মোঃ জিয়াউল হক জিয়া আনারস প্রতীকে পেয়েছেন ৩৫ হাজার ৮১০ ভোট।

রাজশাহী দুর্গাপুরে ৩৫ হাজার ৩১১ পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগের নজরুল ইসলাম। নিকটতম স্বতন্ত্র প্রার্থী আবদুল মজিদ সরদার পেয়েছেন ২৮ হাজার ৫৯১ ভোট। চারঘাটে আওয়ামী লীগের ফকরুল ইসলাম ৫১ হাজার ৩৪৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম বিদ্রোহী প্রার্থী টিপু সুলতান পেয়েছেন ২৫ হাজার ৪০১ ভোট। তানোরে লুৎফর হায়দার রশীদ ময়না নৌকা প্রতীকে ৩৭ হাজার ২২০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পার্টির শরিফুল ইসলাম ৩৬ হাজার ৮৬৬ ভোট। পুঠিয়ায় ৩৯ হাজার ৯৫৭ ভোট আওয়ামী লীগ প্রার্থী জিএম হিরা বাচ্চু বিজয়ী হয়েছে। নিকটতম আনসার আলী (লাঙ্গল) পেয়েছেন ১ হাজার ৪৪৩ ভোট। বাগমারায় আওয়ামী লীগের অনিল কুমার সরকার ৩২ হাজার ২৪৭ ভোাট। নিকটতম স্বতন্ত্র বাবুল হোসেন আনারস প্রতীকে পেয়েছেন ৩ হাজার ৮৩৪ ভোট। গোদাগাড়ী জাহাঙ্গীর আলম নৌকা প্রতীকে ৪৯ হাজার ৫০৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। নিকটতম স্বতন্ত্র প্রার্থী বদিউজ্জামান পেয়েছেন ১৮ হাজার ৫০২ ভোট।

জয়পুরহাট ॥ ক্ষেতলালে ৩৪ হাজার ২০১ ভোট পেয়ে আওয়ামী লীগের মোস্তাকিম মন্ডল বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম স্বতন্ত্র প্রার্থী তাইফুল ইসলাম তালুকদার পেয়েছেন ২২ হাজার ৮৬৩ ভোট। কালাইয়ে আওয়ামী লীগের মিনফুজুর রহমান মিলন ৫০ হাজার ৭১৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। নিকটতম জাসদের তারেকুল ইসলাম পেয়েছেন ৮ হাজার ৮৭২ ভোট। আক্কেলপুরে স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুস সালাম আকন্দ ২৯ হাজার ৮৪৪ ভোট পেয়ে বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। নিকটতম আ. লীগের মোকছেদ আলী মন্ডল পেয়েছেন ২২ হাজার ৮৪২ ভোট। সূত্র ঃ জনকণ্ঠ





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST