ঘোষনা:
শিরোনাম :
নীলফামারীতে পুলিশ সুপারের সাথে হিন্দু ধর্মালম্বীদের মতবিনিময় নীলফামারীতে সামাজিক-সম্প্রীতি সমাবেশ হয়েছে। ডিমলায় কৃষক সমাবেশ ও আলোচনা সভা নীলফামারীতে ডিজি কেয়ার ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ভুল রিপোর্ট প্রদান, সিভিল সার্জনের কাছে লিখিত অভিযোগ। সাফের ইতিহাসে নতুন ইতিহাস গড়লেন সাবিনা কৃষ্ণারা ডিমলায় সড়ক দূঘর্টনায় ভিক্ষুকের মৃত্যু নীলফামারীতে চিরকুট লিখে আত্মহত্যা-স্বামী-সহ ৪ জনের নামে মামলা,স্বামী গ্রেফতার নীলফামারী সৈয়দপুরে পরিবারের অত্যাচারে সুইসাইড নোট লিখে গৃহবধূর আত্নহত্যা নীলফামারীতে বহুল প্রচারিত যুগের আলো পত্রিকার ৩০ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী। ডিমলায় সাংবাদিককে পেটালেন শিক্ষক স্বদেশ
বর্জনকারীরা নাটক মঞ্চস্থ করতে চেয়েছিল: ছাত্রলীগ

বর্জনকারীরা নাটক মঞ্চস্থ করতে চেয়েছিল: ছাত্রলীগ

জিপি ডেস্ক ঃ

ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ও ডাকসুর কেন্দ্রীয় সংসদে ছাত্রলীগ প্যানেলের সাধারণ সম্পাদক (জিএস) প্রার্থী গোলাম রাব্বানী বলেছেন, যাঁরা ডাকসু নির্বাচনের ভোট বর্জন করেছেন, তাঁরা একটি সুন্দর নাটক মঞ্চস্থ করতে চেয়েছিলেন। তাঁদের প্রতি সাধারণ শিক্ষার্থীদের সমর্থন নেই বুঝেই তাঁরা একটি ‘সেইফ এক্সিট’ খুঁজছিলেন।

সোমবার বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যানটিনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে রাব্বানী এসব কথা বলেন। কয়েকটি প্যানেলের প্রার্থীদের নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা ও ছাত্রলীগের অবস্থান তুলে ধরতে এই সংবাদ সম্মেলন করা হয়।

গোলাম রাব্বানী বলেন, ‘কীভাবে ব্যালট হাতছাড়া হওয়ার ঘটনা ঘটানো ঘটেছে, পুরো জাতি আজ তা দেখেছে। দরজা ভেঙে আমাদের শিক্ষিকাদের লাঞ্ছিত করে তারা সেটি বাইরে নিয়ে গেছে। এই ব্যালটগুলো ভুয়া, মূল ব্যালটের সঙ্গে এর মিল নেই।’

বাংলাদেশ-কুয়েত মৈত্রী হলসহ নির্বাচনে ঘটে যাওয়া বিভিন্ন ঘটনার বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে রাব্বানী বলেন, ‘কোন হলে কাকে বাধা দেওয়া হয়েছে, সুনির্দিষ্টভাবে বলতে হবে। আমরা শতভাগ ভোট কাস্ট হোক, সেটা চেয়েছি। সবাই যেন ভোট দিতে পারে, সে জন্য আমরা আন্তরিক ছিলাম। যেখানেই অভিযোগ শুনেছি, আমরা ছুটে গিয়েছি এবং সমাধানের চেষ্টা করেছি।’

সোমবার সকাল ৮টা থেকে ডাকসুর ভোট গ্রহণ শুরু হয়। তবে বিভিন্ন হলে ব্যালট উদ্ধারের ঘটনা এবং ছাত্রলীগ ছাড়া অন্য প্রার্থীদের ভোটকেন্দ্রে প্রবেশ বাধা দানের অভিযোগ তুলে দুপুরের দিকে ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন ছাত্রলীগ বাদে অন্য সব প্যানেলের প্রার্থীরা। এর মধ্যে রয়েছে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল, সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ, সাধারণ শিক্ষার্থী পরিষদ, স্বাধিকার স্বতন্ত্র পরিষদ, প্রগতিশীল ছাত্রঐক্য, রোকেয়া পরিষদ। ছাত্র ফেডারেশন স্বতন্ত্র জোটসহ বিভিন্ন পদের স্বতন্ত্র প্রার্থীরা পুনরায় ভোটগ্রহণের দাবি জানিয়ে তা আদায় না হওয়া পর্যন্ত ধর্মঘটের ঘোষণা দেন।|সূত্র ঃ প্রথম আলো





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST