ঘোষনা:
শিরোনাম :
নীলফামারীতে জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষে দ্বীপ্তমান মানবউন্নয়ন ও সমাজকল্যাণ সংস্থার আলোচনা সভা ও মাক্স বিতরন সাতক্ষীরা এক প্রকৌশলীর বাড়িতে দূর্ধর্ষ ডাকাতি, ১৫ ভরি স্বর্ণালংকার ও নগদ টাকাসহ বিভিন্ন মালামাল লুট চট্টগ্রাম গণহত্যা দিবস আজ দেশে স্বাধীনতা রক্ষা ও গণতন্ত্র সমুন্নত রাখতে কাজ করার জন্য পুলিশ সদস্যদের প্রতি আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অনশন ভাঙাতে শিক্ষক সমিতির দাবি কুড়িগ্রাম সদর থানার উপ-পরিদর্শকের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরওয়ানা রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে মৃত্যু ৩ চট্টগ্রামে করোনা আক্রান্ত ৯৮৯ জন,সংক্রমণের হার ৩৯ দশমিক ৯৫ বিজিবি ঠাকুরগাঁও সেক্টর আন্তঃ ব্যাটালিয়ন ভলিবল প্রতিযোগিতা-২০২২ এর উদ্বোধন নীলফামারীতে গ্রামের বিভিন্ন রাস্তাঘাট উন্নয়নে মাটি কাটার কাজ করছে,১৩ হাজার ৫৫১ জন শ্রমিক
বিমানবন্দর থেকে তিন মিনিটেই প্রায় সাড়ে ৭শ’ কেজি সোনা উধাও ।

বিমানবন্দর থেকে তিন মিনিটেই প্রায় সাড়ে ৭শ’ কেজি সোনা উধাও ।

ডাকাতদের ফেলে যাওয়া গাড়ি। ছবি: সংগৃহীত
আন্তর্জাতিক ডেস্ক ,
‘ফাস্ট ফাইভ’ সিনেমার কথা মনে আছে? কিংবা ‘ইটালিয়ান জব’, ‘ডেন অব থিভস’? দিনদুপুরে সবার সামনে থেকে সোনাদানা ডাকাতির কাহিনি নিয়ে সিনেমার অভাব নেই। তবে, সেগুলো যে শুধু সিনেমা নয়, বাস্তবতারও অংশ- তা আবার মনে করিয়ে দিল ব্রাজিলের একটি ডাকাত দল। মাত্র তিন মিনিটেই বিমানবন্দর থেকে প্রায় সাড়ে ৭শ’ কেজি সোনা নিয়ে কেটে পড়েছে তারা। গত বৃহস্পতিবার (২৫ জুলাই) সাও পাওলো আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এ ঘটনা ঘটেছে। এটিকে বলা হচ্ছে, দেশটির ইতিহাসে দ্বিতীয় বৃহত্তম ডাকাতির ঘটনা।
আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো জানায়, ডাকাতরা পুলিশভ্যান নিয়ে গাওরালোস (সাও পাওলো) বিমানবন্দরে প্রবেশ করে। সিসি ক্যামেরার ফুটেজ অনুযায়ী, গাড়ি থেকে চার জন নেমে আসেন। তাদের সবাই পুলিশের পোশাক পরা ছিলেন। একজনের হাতে বন্দুক ছিল।
বিমানবন্দর প্রেস অফিস জানায়, ছদ্মবেশী ডাকাতরা ভেতরে ঢুকেই বিমানবন্দরকর্মীদের বিভিন্ন আদেশ দিতে থাকেন। তাদের এক জন ফোর্কলিফটে করে একটি বাক্স ওই পুলিশভ্যানে তোলেন।বক্সটিতে প্রায় সাড়ে ৭শ’ কেজি সোনার বার ছিল, যার বাজার মূল্য ৩০ মিলিয়ন ডলার (বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ২শ’ ৫৩ কোটি টাকা)। সেগুলো জুরিখ ও নিউ ইয়র্কে নেওয়া হচ্ছিল।দেশটির পুলিশ প্রধান জোয়াও কার্লোস মিগুয়েল হিউব সাংবাদিকদের বলেন, এটি সুসংগঠিত চক্রের কাজ। অবশ্যই এটা তাদের প্রথম ডাকাতি নয়।
ডাকাতির আগের রাতে বিমানবন্দরের নিরাপত্তা ও পরিবহণ ব্যবস্থাপনা প্রতিষ্ঠানের এক শীর্ষ কর্মকর্তার পরিবারের সদস্যদের অপহরণ করে চক্রটি। এতে ডাকাতদের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিতে বাধ্য হন ওই কর্মকর্তা।তবে, ডাকাতি শেষে অপহরণ করা ব্যক্তিদের অক্ষত অবস্থায় মুক্তি দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি, ব্যবহৃত নকল পুলিশের গাড়িও ফেলে গেছে তারা। বিমানবন্দরে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থার মধ্যেও ডাকাতরা কীভাবে পরপর দু’বার গেট পার হয়ে গেল, তা তদন্ত করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।
এর আগে, ২০০৫ সালে ব্রাজিলে তাদের ইতিহাসের সর্ববৃহৎ ডাকাতি সংঘটিত হয়। ডাকাতরা সেন্ট্রাল ব্যাংকের ফোর্টালেজা শাখার নিচে সুড়ঙ্গ খুঁড়ে প্রায় ৬৭ মিলিয়ন ডলার সমমূল্যের স্থানীয় মুদ্রা লুটে নেয়। ২০১৭ সালে একইভাবে সুড়ঙ্গ খুঁড়ে বাঙ্কো দো ব্রাজিলের ভল্ট ডাকাতির আগ মুহূর্তে সে পরিকল্পনা নস্যাৎ করে দেয় পুলিশ।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST