ঘোষনা:
শিরোনাম :
হিট স্ট্রোকের আগে কি কি,উপসর্গ হতে পারে সাতক্ষীরায় প্রেমিকার বাড়ীতে নির্মম নির্যাতনের শিকার টেক্সটাইলস ইঞ্জিনিয়ার রংপুরে ক্যামেরায় কথা বলছে, গ্রামীন জনপদের ফরিদপুরে বাস পিক-আপ মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ১২, আশঙ্কাজনক ৩ পহেলা বৈশাখে বর্ণিল উৎসবে মেতেছে নীলফামারী সাতক্ষীরায় ভিডিও কলে রেখে ঘরে গলায় ফাঁস দিয়ে বিউটিশিয়ানের আত্মহত্যা নীলফামারীতে ঘোড়ার প্রতি পাকে,পরিবারে জীবনের গল্পটা কস্টের নীলফামারীতে কর্মসংস্থান কর্মসূচি প্রকল্পের কাজের উদ্বোধন ঈদে বাড়ি ফেরা হলো না, শিশু সন্তান সহ পরিবারের  ঈদে ৫ দিন বন্ধের পরে, সাতক্ষীরা স্থলবন্দরে আমদানী-রপ্তানী শুরু, কর্মচাঞ্চল্য
উচ্চমাধ্যমিক ও সমমানের পরীক্ষার কারণে ১ এপ্রিল থেকে ৬ মে পর্যন্ত কোচিং বন্ধ

উচ্চমাধ্যমিক ও সমমানের পরীক্ষার কারণে ১ এপ্রিল থেকে ৬ মে পর্যন্ত কোচিং বন্ধ

 

 ফাইল ছবি।

 

 

ঢাকা প্রতিবেদক,

আসন্ন উচ্চমাধ্যমিক ও সমমানের পরীক্ষার কারণে আগামী ১ এপ্রিল থেকে ৬ মে পর্যন্ত দেশের সব ধরনের কোচিং সেন্টার বন্ধ থাকবে। প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধ ও নকলমুক্ত পরিবেশে পরীক্ষা অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। আজ সোমবার সচিবালয়ে এই পরীক্ষা নিয়ে অনুষ্ঠিত আইনশৃঙ্খলা ও তদারক কমিটির সভা শেষে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি এই তথ্য জানান।

আগামী ১ এপ্রিল থেকে শুরু হবে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা। লিখিত পরীক্ষা শেষ হবে ১১ মে। এরপর ১২ থেকে ২১ মে পর্যন্ত ব্যবহারিক পরীক্ষা শেষ করতে হবে।

শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি বলেন, এবার আটটি সাধারণ শিক্ষা বোর্ড, মাদ্রাসা ও কারিগরি বোর্ড মিলিয়ে মোট পরীক্ষার্থী ১৩ লাখ ৫১ হাজার ৩০৯ জন। এর মধ্যে আটটি সাধারণ শিক্ষা বোর্ডের অধীনে মোট পরীক্ষার্থী ১১ লাখ ৩৮ হাজার ৫৫০ জন।

প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধে এবারও বিভিন্ন ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে জানান শিক্ষামন্ত্রী। তিনি বলেন, বিজি প্রেস থেকে প্রশ্নপত্রের প্যাকেটে গতানুগতিক কাগজের খামের বদলে অধিকতর নিরাপত্তাবিশিষ্ট অ্যালুমিনিয়াম ফয়েল খাম ব্যবহার করা হয়েছে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম পর্যবেক্ষণে তদারক কমিটি গঠন করা হয়েছে। ভেন্যু কেন্দ্রের জন্য প্রশ্নপত্রের আলাদা প্যাকেট ও ট্রাংক তৈরি করা হয়েছে, যা ট্রেজারি থেকে সরাসরি ভেন্যুতে পাঠানো হবে।

পরীক্ষার্থীদের আগের মতোই ৩০ মিনিট আগে আবশ্যিকভাবে কেন্দ্রের আসন গ্রহণ করতে হবে। অনিবার্য কারণে কোনো পরীক্ষার্থীর কেন্দ্রে আসতে দেরি হলে রেজিস্ট্রারে তার নাম, ক্রমিক নম্বর ও বিলম্বের কারণ উল্লেখ করতে হবে এবং সেটি প্রতিদিন কেন্দ্রসচিব সংশ্লিষ্ট বোর্ডকে জানাবেন। কেন্দ্রে শুধু ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (কেন্দ্রসচিব) সাধারণ মানের একটি ফোন ব্যবহার করতে পারবেন। কেউ মোবাইল ফোন বা অননুমোদিত ইলেকট্রনিকস যন্ত্র ব্যবহার করতে পারবেন না।

গত পরীক্ষার মতো এবারও পরীক্ষা শুরুর মাত্র ২৫ মিনিট আগে কোন সেট প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা হবে, সেটা জানানো হবে। পরীক্ষার হলে প্রশ্নপত্র বণ্টনে যাতে কোনো অসুবিধা না হয়, সে জন্য নিয়মিত ও অনিয়মিত পরীক্ষার্থীদের আলাদা আলাদা কক্ষে আসন বিন্যাস করে প্রশ্নপত্র বিতরণ করতে হবে।

সভায় মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব সোহরাব হোসাইন, কারিগরি ও মাদ্রাসা বিভাগের সচিব মো. আলমগীর, ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান মো. জিয়াউল হকসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রতিনিধি, গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিনিধিসহ বিভিন্ন সংস্থা, বিভাগের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।প্রথম আলো ॥





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST