ঘোষনা:
শিরোনাম :
আওয়ামীলীগ হিন্দুদের দল, ভারতের চর এসব ট্যাবলেটে এখন আর কাজ হয়না,তথ্যমন্ত্রী হলি আর্টিজানে জঙ্গি হামলায় ৬ বছর পূর্তিতে,কূটনীতিকরা নিহতদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা বিকেএসপিতে ব্লু খেতাব অর্জন,দেশসেরা নারী আরচার নীলফামারীর দিয়া সিদ্দিকী জাতি হিসেবে আমাদের সক্ষমতাকে সবসময় অবমূল্যায়ন করে সমালোচকরা বললেন,প্রধানমন্ত্রী খাগড়াছড়িতে ৭ম টিআরসি ব্যাচের প্রশিক্ষণ সমাপনী নীলফামারীর ডিমলায় মাদকদ্রব্যের রোধকল্পে কর্মশালা ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে রায়পুরায় কাভার্ডভ্যান চাপায় নিহত,৩ আহত ৫ চট্টগ্রামে করোনা আক্রান্ত ৭০ জন  জলঢাকা পৌরসভার ৭৯ কোটি ৭৯ লক্ষ ১ হাজার ৭ শত ৩০টাকার বাজেট ঘোষনা কিশোরগঞ্জে মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার সমন্বিত কর্মপরিকল্পনা প্রণয়ণে কর্মশালা
নীলফামারী চাঁদের হাট ডিগ্রি কলেজের সুনাম ছারিয়েছে দেশব্যাপি।

নীলফামারী চাঁদের হাট ডিগ্রি কলেজের সুনাম ছারিয়েছে দেশব্যাপি।

ফাইল ছবি।

স্টাফ রিপোর্টার,
নীলফামারী সদরে ছায়াঘেরা প্রকৃতির মনোরম পরিবেশে গড়ে উঠেছে চাঁদের হাট ডিগ্রি কলেজ। অধ্যক্ষ শহিদুল ইসলামের সহপাঠিরা যখন পড়াশোনা শেষ করে চাকরি খুঁজছিল তখন শহিদুল ইসলাম তার গ্রামের অসহায় মানুষের ছেলে-মেয়েদের কথা চিন্তা করেন।কি ভাবে কম খরচে উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হতে পারবে। সে চিন্তা মাথায় নিয়ে প্রতিষ্ঠা করেন চাঁদের হাট ডিগ্রি কলেজ। কলেজের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ শহিদুল ইসলামের প্রানপন চেষ্টায় বর্তমানে কলেজ থেকে ডিগ্রি ও অনার্স কোর্স চালু করা হয়েছে। বর্তমানে সেই কলেজটি গ্রামের গন্ডি পেড়িয়ে জেলায় অর্জন করেছে যথেষ্ঠ সুনাম।উক্ত কলেজের ২০-২১ শিক্ষা বর্ষে বোর্ডের নির্ধারিত টাকায় ভর্তি করানো হয়।মানবিক বিভাগের ভর্তিকৃত শিক্ষার্থী ইসতিয়াক আহমেদ (রোল:১২৮) এর সাথে কথা হলে তিনি জানায়, আমার পরিবারের অর্থনৈতিক অবস্থা ভাল না।আমার পরিবার ভর্তির পুরো ফি দিতে পারছে না তখন অধ্যক্ষ স্যারকে একটা আবেদন দেওয়াতেই তিনি ১০০০ টাকা মওকুফ করে দেন। বানিজ্য শাখার অপর এক শিক্ষার্থী সেতারা আক্তার (রোল:২৪) জানায়, আমি টাকার অভাবে ভর্তি হতে পারছিলাম না। অধ্যক্ষ স্যার নিজে আমাকে ১৫০০শত টাকা দিয়ে কলেজে ভর্তি হওয়ার সুযোগ করে দেন। বিজ্ঞান শাখার শিক্ষার্থী সুমাইয়া আক্তার একই অনুভুতি প্রকাশ করেন।২০-২১ শিক্ষা বর্ষে গরীব অসহায়,প্রতিবন্ধি ৩৫ জনকে  পাঁচশত থেকে পনেরোশত টাকা কলেজের দরিদ্র তহবিল থেকে ভর্তি  বাবদ আর্থিক সহায়তা প্রাদান করা হয়। গত বছর ৪২ জনকে সহায়তা প্রাদান করা হয়।সুনামেের  সাথে গত বছর এইস এস সি পরীক্ষায় দুই শত বিশ জন পাস করে। কলেজের রোভার স্কাউটসে ২০২০ সালের ২৫ থেকে ২৯ ফেব্রুয়ারির ক্যাম্পে পুরস্কৃত হয় রোভাররা।কলেজটির পোশাক  পড়ে আশা বাধ্যতামুলক।টাকা না থাকলে দরিদ্র তহবিল থেকে  আর্থিক সহায়তায় পোশাক বনানোর বিধান রেখেছেন কলেজ কর্তৃপক্ষ।চাঁদের হাট ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ সহিদুল ইসলাম বলেন, দীর্ঘ ২৬ বছরের অক্লান্ত পরিশ্রমের ফল আজকের এই কলেজ।যাতে এলাকার ছেলে মেয়েরা কম খরচে উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হতে পারেন। এছাড়াও  শিক্ষাবিদ হিসেবে মাদারতেরেছা ও ড,মোঃ শহীদুল্লাহ এ্যাওয়াডে ভুশিত হন কলেজটির অধ্যক্ষ।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST