ঘোষনা:
শিরোনাম :
পদ্মা সেতু হওয়ায় বিএনপি উদভ্রান্তের মত কথা বলছে,চট্টগ্রামে তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী বানভাসি মানুষের পাসে লিয়ন চৌধুরী নীলফামারীতে মধ্য রাতে মাতলামি; প্রতিবাদ করায় গুরুতর রগকাটা জখম, থানায় এজাহার। নীলফামারীতে এক মাস ব্যাপি পুনাক তাঁত শিল্প ও পণ্য মেলার শুভ উদ্বোধন পাহাড়ে সন্ত্রাস দমনে এপিবিএন’র টহল শুরু শিক্ষক হত্যা ও কলেজ অধ্যক্ষকে নির্যাতনের প্রতিবাদে নীলফামারীতে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান। আওয়ামীলীগ হিন্দুদের দল, ভারতের চর এসব ট্যাবলেটে এখন আর কাজ হয়না,তথ্যমন্ত্রী হলি আর্টিজানে জঙ্গি হামলায় ৬ বছর পূর্তিতে,কূটনীতিকরা নিহতদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা বিকেএসপিতে ব্লু খেতাব অর্জন,দেশসেরা নারী আরচার নীলফামারীর দিয়া সিদ্দিকী জাতি হিসেবে আমাদের সক্ষমতাকে সবসময় অবমূল্যায়ন করে সমালোচকরা বললেন,প্রধানমন্ত্রী
নীলফামারীতে মৎস্য কর্মকর্তার অনৈতিক দাবী পূরণ না করায়, পুকুর খনন প্রকল্পের টাকা ফেরত।

নীলফামারীতে মৎস্য কর্মকর্তার অনৈতিক দাবী পূরণ না করায়, পুকুর খনন প্রকল্পের টাকা ফেরত।

মোঃ হারুন উর রশিদ,স্টাফ রিপোর্টারঃ
দাবীকৃত চাহিদা পূরণ করতে না পারায় দামুয়া পুকুর পূণঃ খনন প্রকল্পের টাকা ফেরত দেন নীলফামারী জেলার মৎস্য কর্মকর্তা। জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ আশরাফুজ্জামান এর অপসারণ চেয়ে মৎস্যজীবিরা অভিযোগ দায়ের করেন। অফিস খরচ ২ লক্ষ টাকা দিতে না পারায় নীলফামারী সদর উপজেলার লক্ষীচাপ ইউনিয়নের দামুয়া পুকুর পূণঃখনন প্রকল্পের কাজ বাস্তবায়ন না করা অভিযোগ উঠেছে। জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ আশরাফুজ্জামান এর বিরুদ্ধে এ বিষয়ে নীলফামারী জেলা প্রশাসক বরাবরে লিখিত অভিযোগ দিয়েছে সোনারায় মৎস্যজীবি সমবায় সমিতি।

অভিযোগে বলা হয়, লক্ষীচাপ ইউনিয়নের দামুয়া পুকুরটির দু-পার্শের পাড় না থাকায় বর্ষা মৌসুমে পুকুরের মাছ বের হয়ে যাওয়া ও খড়ার সময় পুকুর শুকিয়ে যাওয়ার কারনে আর্থিক ক্ষতির সম্মূখীন হতে হয় মৎস্য জীবিদের। সরকারী এ পুকুরটি ২.১০ একর জমিতে অবস্থিত। ২০১৯-২০২০ ইং অর্থ বছরে দামুয়া পুকুরটির পাড় সংস্কার ও পূণঃ খননের জন্য নীলফামারী ২আসনের সংসদ সদস্য- আসাদুজ্জামান নুর এমপি প্রকল্প পরিচালক বরাবর নীলফামারী জেলাধীন সদর উপজেলা সরকারী ও প্রতিষ্ঠানিক পুকুর বিল মরানদী পূণঃ খনন ও সংস্কারের জন্য প্রকল্প সমূহ ডি,পি,পিতে অন্তরভুক্তির জন্য আবেদন জানান ৩ মে ২০১৯ ইং তারিখে । তার পরিপ্রেক্ষিতে রংপুর মৎস্য উন্নয়ন প্রকল্পের ডি,পি,পি, তালিকায় পুকুরটির নাম অন্তরভুক্ত হয় ১০ মার্চ ২০২০ ইং তারিখে। পূণঃ খনন কাজ বাস্তবায়নের জন্য দরিদ্র মৎস্য জীবিদের কাছে অফিস খরচ বাবদ ২ লক্ষ টাকা দাবী করে জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ আশরাফুজ্জামান এর দাবী পূরন করতে মৎস্য জীবিরা ব্যার্থ হলে তিনি এই সরকারী দামুয়া পুকুরটি বাদ দিয়ে নীলফামারী ডোমার, জলঢাকা, কিশোরগঞ্জ উপজেলার মৎস্য জীবিদের কাছে অফিস খরচের টাকা গ্রহন করে পুকুর বিল পূণঃ খনন ও সংস্কার কাজ বাস্তবায়ন করেন। গরীব মৎস্য জীবিদের চলতি বন্যায় পুকুরটি ভেসে গিয়ে কয়েক লক্ষ টাকার মাছ বের হয়ে আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়ে স্থানীয় মৎস্য চাষিরা সোনারায় মৎস্য জীবির সমবায় সমিতির সভাপতি মানিক মাঝি বলে মৎস্য কর্মকর্তার চাহিদা আমরা পূরণ করতে না পাড়ায় তিনি আমাদের পুকুর খনন করেন নাই। বর্ষা ও বন্যায় আমাদের লক্ষ লক্ষ টাকার মাছ ভেসে গেছে সুধু পাড় বান্দা না থাকার কারনে আমার কাছে ২ লক্ষ টাকা দাবী করেন, জেলা মৎস্য কর্মকর্তা অথচ আমরা সরকারের কাছে পুকুরটি ইজারা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে মাছ চাষ করে জীবিকা নির্বাহ করি,এ কারনে আমরা মৎস্য কর্মকর্তার অপশারণ চেয়ে রংপুর বিভাগীয় কমিশনারের কাছে বিচার চাইছি।

জানতে চাইলে রংপুর বিভাগীয় কমিশনার মোঃ আবদুল ওয়াহাব ভুঁইয়া বলেন, এ বিষয়ে আমি কোন অভিযোগ পাই নি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST