ঘোষনা:
ডোমারে বিধবার ভিজিডি কার্ডের চাল আত্মসাতের অভিযোগ।

ডোমারে বিধবার ভিজিডি কার্ডের চাল আত্মসাতের অভিযোগ।

ষ্টাফ রিপোর্টার ,
নীলফামারীর ডোমারে অসহায় দুঃস্থ এক বিধবা মহিলার স্বাক্ষর জালিয়াতি করে ভিজিডি কার্ডের চাল উত্তোলন করে আত্মসাতের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর অভিযোগ দায়ের করেছে ভুক্তভোগী ওই বিধবা। ডোমার উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর দায়ের করা অভিযোগে জানা যায়, ডোমার উপজেলার মেলাপাঙ্গা গ্রামের মৃত বুলবুল ইসলামের বিধবা স্ত্রী ২ সন্তানের জননী শেরিনা বেওয়া স্বামীর মৃত্যুর পর পঙ্গু পিতার গৃহে মানবেতর জীবনযাপন করছেন। তার এ অবস্থার সুযোগকে কাজে লাগিয়ে পাঙ্গা মটুকপুর ইউনিয়ন পরিষদ হতে তার নামে প্রতি মাসে ৩০ কেজি চাল প্রাপ্তি হিসাবে একটি ভি,জি,ডি কার্ড বরাদ্দ দেয়া হয়। যার কার্ড নং-২১০। তার নামে কার্ড বরাদ্দ হলেও দীর্ঘ ৮ মাস ধরে শেরিনা বেওয়া জানতে পারেনি তার নামে বরাদ্দকৃত কার্ডের বিষয়টি এবং তিনি কোন চালও উত্তোলন করেননি। পরবর্তীতে শেরিনা বেওয়া তার নামে কার্ড বরাদ্দের বিষয়টি জানতে পারলে ইউনিয়ন পরিষদ হতে তাকে ২৭ অক্টোবর ২ মাসের চাল এক সাথে দেয়া হয়। শেরিনা জানায়, সে অক্ষর জ্ঞান সম্পন্ন হলেও তার স্বাক্ষরের পরিবর্তে টিপসই ব্যবহার করে দীর্ঘ ৮ মাস ধরে প্রতি মাসের ৩০ কেজি করে চাল উত্তোলন করেছেন কে বা কাহারা। শেরিনা বেওয়া তার ৮ মাসের আত্মসাৎকৃত ২৪০ কেজি চাল উদ্ধার সহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের আশায় ডোমার উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর একটি আবেদন করেছেন। পাঙ্গা মটুকপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এমদাদুল হক বলেন এ ব্যাপারে আমি কিছু জানি না । সংশ্লিষ্ট ইউপি সদস্যের সাথে কথা বলতে বলেন তিনি। ডোমার উপজেলা নির্বাহী অফিসার উম্মে ফাতিমা বলেন তদন্ত করে এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST